1. hasansahriare@gmail.com : Hasan Sahriare : Hasan Sahriare
  2. asmjashim2017@gmail.com : Diganta : jashim Diganta
  3. admin@digantanews24.com : Manir :
দাফনের পাঁচ মাস পরও কবরে নারীর অক্ষত লাশ, উৎসুক জনতার ভিড় - Diganta News
বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন

দাফনের পাঁচ মাস পরও কবরে নারীর অক্ষত লাশ, উৎসুক জনতার ভিড়

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১.৪৪ অপরাহ্ণ
  • ২৯৩ Time View
ছবিঃ সংগ্রহীত

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে দাফনের সাড়ে চার

মাস পর কবর থেকে অক্ষত অবস্থায় এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

কালজানি নদীর প্রবল ভাঙনে কবরের একপাশ ধসে গিয়ে লাশের একাংশ বেরিয়ে এলে এলাকার মানুষ অক্ষত অবস্থায় লাশটি দেখতে পায়।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে লাশটি দেখার জন‍্য ওই কবরের পাশে উৎসুক জনতার ভিড় জমে।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার শিলখুড়ি ইউনিয়নের উত্তর ধলডাঙ্গা গ্রামের (৩ নং ওয়ার্ড)

সাবেক ইউপি সদস্য আমবাজ আলীর বাড়ির পারিবারিক কবর স্থান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সাড়ে চার মাস আগে শিলখুড়ি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য আমবাজ আলীর স্ত্রী মারা গেলে বাড়ির পাশে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। সম্প্রতি কালজানি নদীর প্রবল ভাঙনে উক্ত কবরের একপাশ ধসে গিয়ে লাশের একাংশ বেরিয়ে এলে এলাকার মানুষ অক্ষত অবস্থায় লাশটি দেখতে পায়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে লাশটি দেখার জন্য উৎসুক মানুষের ঢল নামে কবরের পাশে। পরে এলাকাবাসী নদী ভাঙনের কবল থেকে ওই অক্ষত লাশটি সরিয়ে নিয়ে এলাকার সামাজিক কবরস্থানে পুনরায় দাফন করেন।

শিলখুড়ি ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা লুৎফর রহমান জানান, লাশ পুনরায় দাফনের কাজে তিনি নিজে নিয়োজিত ছিলেন। লাশের গায়ে কোনো রকম দুর্গন্ধ তো দূরের কথা কাফনের কাপড়েও কোন পরিবর্তন তিনি দেখেননি। আগের কাফনেই তাকে পুনরায় সমাহিত করা হয়েছে। মৃত্যুর প্রায় ৫ মাস পরে এ রকম অক্ষত লাশ দেখে তিনি বিস্মিত।

শিলখুড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ বলেন, এ রকম অলৌকিক ঘটনার কথা লোকমুখে শুনেছি কিন্তু আজ আমি নিজে এটার সাক্ষী হয়ে গেলাম। শুনেছি তিনি অত্যন্ত একজন দানশীল মহিলা ছিলেন। তার কাছে হাত পেতে কেউ কখনও নিরাশ হননি। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের পাশাপাশি তিনি নিয়মিত তাহাজ্জুদ নামাজ পড়তেন।

এ বিষয়ে ভূরুঙ্গামারী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এএসএম সায়েমের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, এমনটা হওয়া বিজ্ঞান সম্মত নয়। কোনোরূপ সংরক্ষণমূলক ব্যবস্থা ছাড়া দাফনের ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যেই প্রাকৃতিক নিয়মেই লাশ পঁচে যাওয়ার কথা। কিন্তু তা যখন হয়নি এটি মহান আল্লাহ পাকের কুদরতি।

Spread the love
এই বিভাগের আরো খবর

Copyright © All Right Reserved digantanews24.com
Site Customized BY Monir Hosen